শিক্ষাঙ্গন

বিদেশে স্কলারশীপ এর জন্যে প্রিপারেশন যেভাবে নিবেন

আপনি যদি বিদেশে স্কলারশীপ নিয়ে পড়ালেখা করতে যেতে চান তাহলে আপনাকে ছোট একটা কাজ করতে হবে। কাজটা হল, আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি একদিন বিদেশে স্কলারশীপ নিয়ে পড়তে যাবেন।

এবার প্রশ্ন হল, আপনি কোন্ দেশে যাবেন ?

উন্নত যে কোন দেশেই রয়েছে নানা ধরণের স্কলারশীপ। আমার অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে পারি, বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা নীচের দেশগুলোতে যেতে বেশী পছন্দ করেঃ

(১) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (২) কানাডা (৩) অষ্ট্রেলিয়া (৪) জার্মানী (৫) ব্রিটেন (৬) জাপান (৭) সুইডেন (৮) সুইজারল্যান্ড (৯) নিউজিল্যান্ড (১০) সিংগাপুর (১১) কোরিয়া।

তারপরের অবস্থানে থাকতে পারেঃ চায়না, মালয়েশিয়া, মধ্য-প্রাচ্যের দেশ সমুহ, ইউরোপের অন্যান্য দেশ সমুহ (উপরে যেগুলো উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো বাদে)।

এছাড়াও থাকতে পারেঃ ইজিপ্ট, তুরস্ক, ইন্ডিয়া, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, তাইওয়ান ইত্যাদি।

যদি কারো কোন দেশের প্রতি বিশেষ টান থাকে তাহলে তো বেশ ভালো। তার মানে দেশ নির্ধারণ হয়ে আছে।

অধিকাংশ শিক্ষার্থীরই কোন না কোন একটা দেশের প্রতি উচ্চ-শিক্ষার জন্য একটা টান থেকেই থাকে।

প্রথম কাজ, আপনি অনার্স বা মাষ্টারস এর শিক্ষার্থী অথবা চাকুরীজীবী অথবা আপনার অবস্থান যাই হোক না কেন, আপনি যদি সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন যে একদিন আপনি উচ্চ-শিক্ষা গ্রহণ করতে চান আপনার কাংখিত দেশ থেকে তাহলে সম্ভব হলে প্রতিদিনই আপনি সেই দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট দেখতে থাকেন।

তাহলে আপনার দ্বিতীয় কাজটি হলঃ তথ্য সংগ্রহ। বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর স্কলারশীপের তথ্যগুলো জানা খুবই দরকার।

এবং তৃতীয় কাজটি হলোঃ স্কলারশিপ যদি একমাত্র লক্ষ হয় তাহলে, ডকুমেন্টস সত্যায়িত করে রাখুন, কারন বেসির ভাগ সময় সিলেকশন কমিটি আপনার পেপারস কতটা স্ট্রং সেই দিকে খেয়াল রাখবে, তাই স্কলারশিপ পেতে প্রয়জনিয় ডকুমেন্টস সাত্যাতিয় করে রাখা ভালো।

যেসব পেপারস সত্যায়িত করবেন আর যেভাবে করবেনঃ

#সার্টিফিকেট এবং মার্কশিটঃ

প্রথমে নিজ নিজ শিক্ষা বোর্ড থেকে সত্যায়িত করাবেন দাখিল/SSC,আলিম/HSC কিছু টাকা নিবে, ১-১০ দিন পরে পাবেন, এরপরে যাবেন এডুকেশন মিনিস্ট্রি তে,আপনার যদি আরাবিক পেপারস থাকে তাহলে এডুকেশন মিনিস্ট্রিতে যাবার আগে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এ যাবেন আগারগাও থেকে আরাবিক গুলা সত্যায়িত করাবেন প্রতি পিস ২০ টাকা করে নিবে স্টুডেন্ট এর জন্যে, রিসিট নিয়ে আসবেন হারাবেন না ভুলেও।

এবার এডুকেশন মিনিস্ট্রি করাবেন। সচিবালয় এর কাছেই, ৯ ফ্লোর এ, কোনো টাকা পয়সা নিবেনা, পেপারস জমা দিবেন বেলা ১১টার মধ্যে, ৩০ মিনিট পরেই পেয়ে যাবেন, এরপরে যাবেন পররাস্ট মন্ত্রনালয়/ Foreign Ministry, তে বেলা ১ টা পর্জন্ত জামা নিবে, পরের দিন দিয়ে দিবে, কাজ শেষ।

এরপরে আপনি যে দেশে যাবেন সেই দেশের এম্বাসি থেকে যদি সত্যায়িত করাতে বলে তাহলে এখন এই পেপারস গুলো এম্বাসি থেকে সত্যায়িত করাতে পারবেনঃ
#পাসসপোর্ট,জন্ম নিবন্ধন,পুলিশ ক্লিয়ারেন্স,মেডিকেল সার্টিফিকেট,ন্যাশনাল আইডিকার্ড, চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট, এসব পেপার আইন মন্ত্রনালয় থকে সত্যায়িত করাবেন, আইনমন্ত্রনালয় হলো শিক্ষা মন্ত্রনালয় ভবন এর ১১ নাম্বার ফ্লোরে, এরপরে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়/ Foreign Ministry, যাবেন, কাজ শেষ।

অভিভাবক কি আপনার ডকুমেন্টস সত্যায়িত করতে পারবে?
১। এডুকেশন বোর্ড এবং এডুকেশন মিনিস্ট্রি তে নিজে অথবা গার্ডিয়ান দিয়ে করাতে পারবেন, এডুকেশন বোর্ডে যে ফরম টা জমা দিবেন সেটাতে আপ্নার সাইন এবং মোবাইল নাম্বার লিখে দিতে হবে, আপ্নার গার্ডিয়ান এর আইডি কার্ডের ফটোকপি সাথে নিয়ে যেতে বলবেন যদি তারা চায় দিবে না চাইলে প্রয়জন নেই, এডুকেশন বোর্ড এ ৩০০+৩০০ ব্যাংক ড্রাফট করতে হবে সোনালি ব্যাংকে, বোর্ড এর ভেতরেই ব্যাংক আছে, ৭-৮ দিন পরে পেয়ে যাবেন
২। এডুকেশন মিনিস্ট্রি তেও গার্ডিয়ান দিয়ে পাঠাতে পারবেন, কোনো প্রব্লেম নেই এখানেও কিছু জিজ্ঞেস করবেনা,নো ফী।
৩। এবার আসুন ফরেইন মিনিস্ট্রি / পররাস্ট্র মন্ত্রনালয়, এখানে নিজে যেতে হবে নইলে পেপারস নিবেনা, যদি ইমারজেন্সি অথবা কোনো কারনে না যেতে পারেন গার্ডিয়ান পাঠাতে পারবেন তবে সেই অভিভাবক এর স্মার্ট কার্ড, জন্ম নিবন্ধন, পাসপোর্ট এর যেকোনো একটি পেপারস সাথে নিয়ে যেতে হবে উইথ ফটোকপি এবং আপ্নার একটা লেটার লিখতে হবে, সেটা এমন হবে যে আপ্নি কেনো আসতে পারেন নাই এবং আপ্নি তাকে অনুমতি দিয়েছেন এই কার্য সম্পাদনা করার জন্যে এই মর্মে ভালোভাবে লিখে আপ্নার নাম এবং সাইন দিবেন নিচে, অবশ্যই পাসপোর্ট অনুযায়ী সাইন হতে হবে,

*উন্নত দেশ বা ইউরোপে যাওয়ার যদি একমাত্র লক্ষ হয় তাহলে IELTS,TOEFL,GRE etc ইংলিশ কোর্স করে ফেলুন, অনলাইনে অনেক এড পাবেন যেখানে বলা হয় without IELTS 100% ভিসা হয়, এরকম অনেক এড দেখা যায়, বাস্তবতা হলো এরাই শেষ পর্জন্ত রিজেক্ট হয়।

আপনাদের মতামতের ভিত্তিতে আরো গুরুত্বপূর্ণ টপিক নিয়ে পোস্ট করা হবে। তাই কমেন্টে আমাদের কে জানান। ধন্যবাদ!

Jahangir Kabir 
Cairo University,Egypt
Faculty of Computers and Artificial intelligence
Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close